২০২০ সালে বাসাবাড়িতে ৫০টি পর্যন্ত আইওটি ডিভাইস থাকবে!

বর্তমানে অধিকাংশ গৃহস্থলী যন্ত্রপাতি নেটওয়ার্ক ডিভাইসের মাধ্যমে পরিচালিত হয়, যা মূলত ইন্টারনেটের সঙ্গে যুক্ত থাকে। যেমন কম্পিউটার, গেইমিং সিস্টেম, গৃহস্থলী কাজে সহায়ক যন্ত্রপাতি, হোম রোবোটস, টিভি, ট্যাবলেট, স্মার্টফোন ইত্যাদি। ডিভাইসগুলো ইন্টারনেট যুক্ত নেটওয়ার্ক ডিভাইসের মাধ্যমে পরিচালিত হচ্ছে। তাই আপনার ডিভাইস চারপাশের বিশ্বের সঙ্গে সংযুক্ত হওয়াকে সহজ করে দিয়েছে। কিন্তু এসব যন্ত্র আপনার ও আপনার বন্ধুবান্ধব ও পরিবার সম্পর্কে প্রচুর পরিমাণ তথ্য শনাক্ত বা আয়ত্ত করছে। আপনার কন্টাক্ট, ফটো, ভিডিও, অবস্থান ও স্বাস্থ্য এবং আর্থিক তথ্যের মতো বিষয়গুলো সঞ্চিত করছে।

২০১৬ সালে এনসিএসএ ও ইএসইটি পরিচালিত একটি জরিপ মতে, প্রায় প্রতি চারজনের একজন (২৪%) তাদের বাসাবাড়িতে থাকা ডিভাইস দূর থেকে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য তারা তাদের মোবাইল ডিভাইস বা কম্পিউটারের রিমোট অ্যাপ ব্যবহার করেছেন। যেমন: সামনের দরজার লক, হোম সিকিউরিটি সিস্টেম, টিভি,  থারমোস্ট্যাট)।

-৪২ শতাংশ বাবা-মা গৃহস্থালীর কাজে দিনে বহুবার হয় গুগলের ভয়েস অ্যাসিস্টেন্ট, অ্যামাজনের অ্যালেক্সা, অ্যাপলের সিরি অথবা মাইক্রোসফটের কোরটানা সেবা ব্যবহার করেছেন।

– ৮৯ শতাংশ মানুষ ভবিষ্যতে তাদের সমস্ত গৃহস্থালী ডিভাইস একত্রে ত্রুটিহীনভাবে সংযুক্ত করতে পছন্দ করবে।

– ২০২০ সাল নাগাদ বাসাবাড়িতে গড়ে ৫০টি পর্যন্ত সংযুক্তি বা ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি) ডিভাইস ব্যবহার করা হবে।

– ২০১৬ সালে শীর্ষ স্থানীয় ব্র্যান্ডগুলোর আইওটি পণ্য থেকে ধারণকৃত ২.২ বিলিয়ন তথ্য ফাঁস হয়ে তা ঝুঁকির মুখে পড়ে।

– প্রায় ৪০ শতাংশ মানুষ বলেছেন, সংযুক্ত গৃহস্থালীর ডিভাইসগুলো তাদের ব্যবহৃত তথ্য সঞ্চিত করায় তারা উদ্বিগ্ন।  আর ৪০ শতাংশের বেশি মানুষ বলছেন, এই ধরনের গ্যাজেটগুলো তাদের দৈনন্দিন জীবনে ব্যাবক মাত্রায় জেঁকে বসবে যা নিয়ে তারা উদ্বিগ্ন।

-এটিঅ্যান্ডটি এর সাইবারসিকিউরিটি ইনসাইট রিপোর্ট মতে, এন্টারপ্রাইজগুলোর ৪০ শতাংশের বেশি আইওটি ডিভাইস স্থাপনের প্রক্রিয়ায় রয়েছে অথবা এসব স্থাপনে আগ্রহী তারা।