উবারের গুপ্তচর

নীতিবিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকায় প্রযুক্তি অঙ্গনে সমালোচনার ঝড় উঠেছে অ্যাপভিত্তিক পরিবহনসেবা উবারের বিরুদ্ধে। প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে অভিযোগ, বিভিন্ন প্রযুক্তিপ্রতিষ্ঠানের উদ্ভাবনী প্রযুক্তি গুপ্তচর দ্বারা চুরি করেছে। আর এমন অভিযোগের প্রমাণ দিয়েছেন উবারের সাবেক নিরাপত্তা বিশ্লেষক রিচার্ড জ্যাকবস।

অ্যালফাবেট ইনকরপোরেটেড দ্বারা পরিচালিত স্বয়ংক্রিয় গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ওয়াইমোর প্রযুক্তি চুরির অভিযোগ পাওয়া গেছে জ্যাকবসের দেওয়া প্রমাণ দিতে। আর এ প্রমাণের ভিত্তিতেই উবারকে অভিযুক্ত করে গত মে মাসে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে তদন্তের আদেশ জারি করা চিঠি উবারকে পাঠান যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল আদালত। তবে বিষয়টি এত দিন জনসমক্ষে আনা হয়নি।

জ্যাকবসের ভাষ্য, উবার তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর নজর রাখতে একটি গুপ্তচর দলকে নিয়োগ করে। এরই ধারাবাহিকতায় দলটি উবারের একটি বিভিন্ন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী কর্মকর্তাদের আলাপচারিতা পর্যবেক্ষণ ও রেকর্ড করে। বিশেষ কারণে জনসমক্ষে প্রকাশ করা এসব নথিপত্র থেকে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের নাম সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

তবে এ অভিযোগের সম্পূর্ণ বিপরীতেই কথা বলেছে উবার কর্তৃপক্ষ। এক বিবৃতিতে উবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ‘অভিযোগপত্রের সব দাবি প্রমাণিত হয়নি এবং ওয়াইমোর সঙ্গে সম্পর্কিত কোনো অভিযোগ তো নয়ই। তা ছাড়া আমাদের নতুন নেতৃত্বের মাধ্যমে যেকোনো প্রতিযোগিতায় আমরা সততার সঙ্গে লড়ে চলেছি, যা আমাদের প্রযুক্তির এবং উদ্ভাবনীর ক্ষেত্রেও একই।’

চলতি মাসের শুরুর দিকেই উবার ও ওয়াইমোকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ থাকলেও তা পরিবর্তন করে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারিতে নেওয়া হয়েছে। এ মামলার প্রেসিডেন্সিয়াল বিচারক উইলিয়াম অ্যালসাপ এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘অভিযোগের অর্ধেকও যদি সত্যি হয়ে থাকে, তবে আমরা বিচারব্যবস্থা চালু রাখতে যাচ্ছি।’ -শাওন খান, সূত্র: বিবিসি, সৌজন্যে: প্রথম আলো।